• ডায়াল ১৬৬২২ (২৪/৭)
  • গ্রুপ মেডিকেল বীমা পরিকল্পনা

    গ্রুপ মেডিকেল বীমা পরিকল্পনা

    বর্তমান সময়ে পরিবারের ভারসাম্যহীন খরচের সাথে সামঞ্জস্য রেখে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন নিশ্চিত করা বেশ কষ্টসাধ্য। চিকিৎসা বীমা মূলত হাসপাতালে ভর্তি অভ্যন্তরীণ কিংবা বহিরাগত রোগী এবং গুরুতর অসুস্থতার কারণে চিকিৎসা নেওয়া রোগীদের ব্যয় বহন করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। এই সাশ্রয়ী চিকিৎসা পরিকল্প কর্মীদের মেডিকেল কভারেজ দেওয়ার পাশাপাশি তাদের পরিবারের সদস্যদেরও (স্ত্রী ও নির্ভরযোগ্য সন্তান) চিকিৎসা সুবিধা প্রদান করে থাকে।

    এই বীমা মূলত বীমাগ্রহীতাদের অসুস্থতা কিংবা দুর্ঘটনার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা গ্রহণের ব্যায়ের খরচ সরবরাহ করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। নিম্নলিখিত বিষয়গুলোতে চিকিৎসা বীমা প্রদান করা হয়ঃ

    ১। দৈনিক হাসপাতালের রুম ভাড়া

    ২। আইসিইউ / সিসিইউ লিমিট প্রতি ভর্তির ক্ষেত্রে

    ৩। আইসিইউ / সিসিইউ সহ মোট হাসপাতালের রুম ভাড়া

    ৪। রোগীর চিকিৎসা চার্জ, পরামর্শ ফি, ঔষধাদি, চিকিৎসা সরঞ্জামাদি এবং অসুস্থতা এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক পরিষেবা (রুম এবং আইসিইউ / সিসিইউ চার্জ ব্যতীত) এবং তদন্ত সম্পর্কিত ব্যায় এই বীমা সুবিধার অন্তর্ভুক্ত।

    এই সুবিধা ৪৫ বছর বয়স পর্যন্ত মহিলা কর্মকর্তা/কর্মচারী/স্ত্রীর জন্য প্রযোজ্য। প্রসূতি/প্রসূতিকালীন সুবিধাগুলো হলো রুম, বোর্ড এবং সাধারণ নার্সিং কেয়ার, হাসপাতালের বিশেষ পরিসেবা এবং মা হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীন সময়ে শিশু/ শিশুর সাধারণ নার্সিং কেয়ার এবং চিকিৎসক প্রদত্ত সকল চার্জ এর জন্য প্রযোজ্য। গর্ভাবস্থায় প্রসব, গর্ভপাত বা আইনী গর্ভপাতসহ গর্ভধারণের সাথে সম্পর্কিত যে কোন সমস্যা মাতৃত্বকালীন সুবিধার অন্তর্ভুক্ত। নিম্নলিখিত বিভাগগুলিতে মাতৃত্বকালীন সুবিধা দেওয়া হয়ঃ

    • সাধারণ ডেলিভারি
    • সিজারিয়ান/ইক্টোপিক/ অতিরিক্ত জরায়ু গর্ভাবস্থা
    • আইনী গর্ভপাত বা গর্ভপাত

    • চিকিৎসকদের পরামর্শ ফি
    • মেডিকেল তদন্তের ফি
    • মেডিসিন ব্যায়

    • চিকিৎসকদের পরামর্শ ফি
    • অমলগাম, রেজিন প্লাস্টিক এবং অস্থায়ী/স্থায়ী ফিলিংস
    • রুটিন এক্সট্রাকশন
    • ঔষধ
    • এক্স-রে
    • রুট ক্যানেল চিকিৎসা
    • স্কেলিং এবং পলিশিং (প্রতিটি সদস্যের জন্য বছরে একবার)

    • চিকিৎসকদের পরামর্শ ফি
    • প্রতিসরণ ত্রুটির জন্য দৃষ্টি পরীক্ষা
    • লেন্স এবং চশমা